নরসিংদীর মাধবদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় বিয়ানীবাজারের ৬ জনের মর্মান্তিক মৃত্যু, উপজেলাজুড়ে শোকের মাতম

মাহবুব আহমদ খান, বিয়ানীবাজার থেকে :
বিয়ানীবাজার উপজেলাজুড়ে শোকের মাতম চলছে। মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় বিয়ানীবাজারের পাঁচ জন সম্ভাবনাময় তরুণ ব্যবসায়ি ও এক জন ড্রাইভার সহ মোট ৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় বিভিন্ন গ্রামে বিরাজ করছে শোকাবহ পরিবেশ। সোমবার সকাল ৭টার দিকে নরসিংদীর মাধবদী উপজেলার আমদিয়া ইউনিয়নের কান্দাইল এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
এ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন পৌরশহরের জামান প্লাজার রুপসী ফ্যাশনের স্বত্ত্বাধিকারী মাথিউরার রেজাউল করিম, শখ কসমেটিকস এর স্বত্ত্বাধিকারী ছোটদেশের খায়রুল বাশার খান খয়ের, মতিন ক্লথ ষ্টোর এর স্বত্ত্বাধিকারী শ্রীধরার জুবের আহমদ, কাকরদিয়ার ব্যবসায়ী ইকবাল হোসেন, কসবার রোটার‌্যাক্ট বাবুল আহমদ। দুর্ঘটনায় আরো অন্তত: ৩৫জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
বিভিন্ন সূত্র জানায়, গত ৩-৪ দিন আগে ব্যবসায়ী রেজাউল, খয়ের, জুবের, ইকবালসহ আরো দু’জন একটি প্রাইভেট নোহা গাড়ি নিয়ে কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়েছিলেন। সেখানে পৌঁছে তারা অসহায় রোহিঙ্গাদের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেন। জনসেবামূলক এ কার্যক্রম শেষে তারা কক্সবাজারে ঘুরাঘুরি করেন। গত রবিবার রাতে তারা কক্সবাজার থেকে ওই প্রাইভেট গাড়ি নিয়ে ফিরছিলেন। গাড়িটি নরসিংদীর পাঁচদোনা এলাকায় আসলে বিপরীত দিক থেকে যাওয়া একটি যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিয়ানীবাজারগামী মাইক্রেবাসের (ঢাকা মেট্টো চ ১৬-০২৫২) উপরে ওঠে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তারা। একই গাড়িতে জামান প্লাজার হাফিজ ক্লথ ষ্টোরের মালিক হাফিজ উদ্দিন এবং মতিন ক্লথ ষ্টোরের জসীম উদ্দিন নামের আরো একজন ছিলেন বলে জানা গেছে। তারা গুরুতর আহত হয়েছেন।
এদিকে রোটার‌্যাক্ট বাবুল আহমদ কক্সবাজারে সংগঠনের একটি সেমিনারে অংশ নিতে অপর আরো চার সহযোগীসহ সেখানে যান। ফেরার পথে তিনি তার পরিচিত ব্যবসায়ীদের সাথে একই নোহায় ফিরছিলেন বলে জানান রোটার‌্যাক্ট লিজন আহমদ বাবলু। অপর রোটার‌্যাক্ট এবং বাবুলের সঙ্গে কক্সবাজার যাওয়া ছালেখ হোসেন বলেন, রবিবার সকালে বাবুল আমাদের সঙ্গ ছেড়ে ওই ব্যবসায়ীদের সাথে বাড়ি ফিরবে বলে বের হন। রাত ৩টার দিকে তিনি ফোনে তার এক বন্ধুর সাথে শেষ কথা বলেন।
আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জানাযার নামাজ বিয়ানীবাজার সরকারী কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার রাতেই মরদেহ বিয়ানীবাজার উপজেলা প্রশাসন নিহতদের পরিবারের কাছে হস্তান্তরেরর কথা।
বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মু: আসাদুজ্জামান বলেন, সিলেট জেলা প্রশাসক ও নরসিংদী জেলা প্রশাসক স্যারদের সাথে আমাদের আলাপ হয়েছে। আমি নিজে স্যারদের অনুরোধ করছি, ময়না তদন্ত না করে দ্রুত সময়েরর মধ্যে মরদেহ বিয়ানীবাজার পাঠানোর জন্য। সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন তারা মরদেহ দ্রুত সময়ের মধ্যে পাঠাবেন।
তিনি আরোও বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় একসাথে এতোজন তরুণের মর্মান্তিক মৃত্যু বিয়ানীবাজারে সম্ভবত এটি প্রথম। যার কারেণ এখানকার সকলেই খুবই মর্মাহত। আমরা সুষ্ঠুভাবে জানাযার নামাজ আয়োজনের ব্যবস্থা করছি। তিনি শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।
মাধবদী থানার ওসি মোঃ ইলিয়াস জানান, সোমবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার কান্দাইল বাসস্ট্যান্ডের কাছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এ সময় চারজন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে। নিহত চারজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহজালাল মুন্সী বলেন, আমি দুর্ঘটনার খবর পেয়ে মাধবদী থানার ওসির সাথে যোগাযোগ করেছি এবং যোগাযোগ অব্যাহত থাকবে। রাতেই লাশ বিয়ানীবাজারে পৌঁছার কথা।