হারের তিক্ততা মুছতে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ

ক্রীড়াঙ্গন রিপোর্ট
টেস্ট ও ওয়ানডেতে হোয়াইটওয়াশের পর দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে টুয়েন্টি টুয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচেও পরাজয়ের তিক্ত স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। ফলে দুই ম্যাচের টি-২০ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে টাইগাররা। আজ রবিবার টি-২০ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে, তথা চলতি সফরে শেষবারের মতো খেলতে নামবে বাংলাদেশ। তাই জয় দিয়ে সফর শেষ করাই এখন বাংলাদেশের প্রধান লক্ষ্য। পচেফস্ট্রুমে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় শুরু হবে ম্যাচটি।
দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ২-০ ব্যবধানে এবং তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ। টেস্ট ও ওয়ানডেতে লজ্জার হারের ক্ষত নিয়ে দুই ম্যাচের টি-২০ সিরিজ শুরু করে টাইগাররা। লক্ষ্য ছিল- টি-২০ সিরিজে ঘুরে দাঁড়ানো। কিন্তু প্রথম পরীক্ষায় ব্যর্থ টাইগাররা ২০ রানে সিরিজের প্রথম ম্যাচ হেরে যায় । হার দিয়ে অধিনায়ক হিসেবে নিজের দ্বিতীয় অধ্যায় শুরু হলো সাকিব আল হাসানের।
দক্ষিণ আফ্রিকার ছুঁড়ে দেয়া ১৯৫ রানের জবাবে ১৭৫ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। নিজেদের ইনিংসে শেষ পাঁচ ওভারে ৬২ রান যোগ করেছিলো প্রোটিয়ারা। আর সেখানেই দল ম্যাচ হেরে যায় বাংলাদেশ বলে মনে করেন সাকিব, ‘আমার মনে হয় দক্ষিণ আফ্রিকা দারুণ ব্যাটিং করেছে। বিশেষ করে শেষ পাঁচ ওভারে। শেষ পাঁচ ওভারেই আমাদেরকে হারিয়ে দিয়েছে তারা। সব মিলিয়ে আমরা ১৫-২০ রান বেশি দিয়েছি। দ্বিতীয় ও শেষ টি-২০র দিকে আমরা তাকিয়ে আছি। আশা করি ভালো খেলতে পারবো।’
প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং-এ যেখানে ২২টি ডট বল ছিলো, সেখানে বাংলাদেশের ব্যাটিং-এ ডট ছিলো ৪৫টি। ডট বল হিসেবে এখানে পার্থক্যটা অনেক, তা স্পষ্ট। বাংলাদেশের ম্যাচ হারের আরো একটি কারণও এটি। এমনটা বুঝতে পেরেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবও, ‘কিছু জায়গায় উন্নতি করতে হবে আমাদের। ব্যাটিং-এ ডট বল বেশি হয়েছে, যা আমাদের ভুগিয়েছে। আগ্রাসী এবং বুদ্ধিমান ব্যাটিংও করতে হবে।’
সিরিজের শেষ ম্যাচ জয়ের কথা বলে রেখেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক জেপি ডুমিনি। প্রথম ম্যাচ শেষে তিনি বলেছিলেন, ‘শেষ ম্যাচে আরো ভালো খেলতে চাই এবং সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিততে চাই।’
বাংলাদেশ দল : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মেহেদি হাসান, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), নাসির হোসেন, রুবেল হোসেন, সাব্বির রহমান, শফিউল ইসলাম, সৌম্য সরকার ও তাসকিন আহমেদ।
দক্ষিণ আফ্রিকা দল : জেপি ডুমিনি (অধিনায়ক), হাশিম আমলা, ফারহান বেহাদিয়েন, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), এবি ডি ভিলিয়ার্স, রোবি ফ্রাইলিস্ক, বিউরান হেনড্রিক্স, ডেভিড মিলার, মাঙ্গালিসো মোসলে, ড্যান প্যাটারসন, আরোন ফাঙ্গিসো, আনদিলো ফেলুকুওয়া, ডুয়াইন প্রেটোরিয়াস ও তাবরিজ সামসি।