ভারতকে থামাতে পারবে কি শ্রীলঙ্কা ?

স্পোর্টস ডেস্ক :
ডাম্বুলায় প্রথম ম্যাচে বড় ব্যবধানে জয়ের পর বৃহস্পতিবার পাল্লেকেলেতে দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার image-41811বিপক্ষে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখার লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামবে সফরকারী ভারতীয় ক্রিকেট দল। পক্ষান্তরে যে কোনভাইে সফরকারীদের জয় রথ থামাতে চায় শ্রীলঙ্কা। ওপেনার শিখর ধাওয়ানের অপরাজিত ১৩২ এবং অধিনায়ক বিরাট কোহলির হার না মানা ৮২ রানের সুবাদে প্রথম ম্যাচে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় পায় ভারত। তবে ভারতীয় দলের সেরা একাদশের কোনো প্রকার পরিবর্তনের সম্ভাবনা না থাকায় তাদেরকে থামানোটা উপুল থারাঙ্গার জন্য বেশ কঠিনই হতে পারে।
এমনকি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরেও দলে খুব বেশি পরিবর্তন আনেননি কোহলি। একই দৃশ্য এবার শ্রীলঙ্কা সফরেও। ডাম্বুলায় দুই স্পিনার যুবেন্দ্রা চাহাল ও অক্ষর প্যাটেল ধসিয়ে দিয়েছেন লঙ্কান ব্যাটিং লাইন। সে ক্ষেত্রে পাল্লেকেলের উইকেট অনেক বেশি শুষ্ক না হলে আবারোপ কুলদীপ যাদবের সঙ্গে মনিষ পান্ডে এবং শারদুল ঠাকুরকে সাইড বেঞ্চেই বসে থাকতে হতে পারে।
লংকান বোলারদের ব্যর্থতার বিষয়টি বিবেচনা করে ব্যাটিং অর্ডারে কিছুটা পরিবর্তন এনে কোহলি কেএল রাহুল এবং কেদার যাদবকে সুযোগ দেন কিনা সেটাই দেখার বিষয়।
শ্রীলঙ্কার দল নির্বাচন পদ্ধতি নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।
টেস্ট অধিনায়ক এবং শ্রীলঙ্কার সবচেয়ে আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান দিনেশ চান্ডিমাল প্রথম ম্যাচে সেরা একাদশে সুযোগ পাননি। ওয়ানডে অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গা সাধারণত ওপেনার হিসেবে খেললেও এ ম্যাচে তিনি চান্ডিমালের জায়গায় চার নম্বরে ব্যাটিং করেছেন।
বিষয়টি নিয়ে শ্রীলঙ্কা দলের ড্রেসিং রুমেও প্রশ্ন উঠেছে। এ জন্য কোচ-অধিনায়ক একে অপরকে দোষারোপ করছেন। চান্ডিমালের বাদ পড়ার বিষয়ে প্রধান কোচ নিক পোথাস নিজেই প্রশ্ন তুলেছেন।
দল নির্বাচনে টিম ম্যানেজার গুরুসিনহা এবং প্রধান নির্বাচক সনাত জয়সুরিয়ার প্রভাব নিয়ে প্রশ্ন করলে পোথাস কূটনীতির ভাষায় ‘অনেক সন্ন্যাসী’ বলে জবাব দেন।
তবে শ্রীলঙ্কা যে ভারতকে কোনো প্রকার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারেনি সে সত্যি থেকে দৃষ্টি অন্যত্র সরানো যাবেনা।
এর আগে তিন টেস্টের সিরিজে সফরকারীদের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে স্বগতিকরা। সুতরাং টেস্ট সিরিজ বিবেচনায় আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে উভয় দলের পার্থক্য এক এবং সাত হলে কেবলমাত্র ডাম্বুলা ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে ভারত ও শ্রীলঙ্কার পার্থক্য তিন এবং আট যথার্থ।
টেস্টের মতো ওয়ানডে সিরিজও একতরফা হতে যাচ্ছে এবং বিষয়টি আয়োজক সমর্থকরা মোটেই মেনে নিতে পারছেন না। প্রথম ওয়ানডের শ্রীলঙ্কা দল বহনকারী বাস আটকে রাখতে দেখে যার প্রমাণ পাওয়া গেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পিছনে ফেলে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে হলে এ সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে অন্তত দুই ম্যাচে জয় পেতে হবে।