শাল্লায় পিআইসি থেকে দুদক মামলার আসামী বহিষ্কার

0
26

সুনামগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের বিভিন্ন কর্মসূচিফলে অবশেষে সুনামগঞ্জের দিরাই ও শাল্লা উপজেলা পিআইসি থেকে দুদকের মামলার আসামীদের বা দেওয়া হয়েছে। বুধবার বিকাল ৪টায় উপজেলা কাবিটা স্কীম যাচাই-বাছাই ও বাস্তবায়ন কমিটির অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
জানা যায়, গত ২০ জানুয়ারি দুদক মামলায় অভিযুক্ত উপজেলার কালিকোটা হাওর উপ-প্রকল্পের ৬০নং পিআইসি’র সভাপতি মোঃ বশির আহমদ, ৬৪নং পিআইসি’র সভাপতি মোঃ আবুল মিয়া, উদগলবিল হাওর উপ-প্রকল্পের ৪০নং পিআইসি’র সভাপতি শিথিল চন্দ্র দাস, ছায়ার হাওর উপ-প্রকল্পের ৬৮নং পিআইসি’র সভাপতি সুব্রত সরকার এবং ছয় মাসের সাজাপ্রাপ্ত ৮১নং পিআইসি’র সভাপতি মোঃ সাজু মিয়াকে বহিষ্কার করার জন্য কাশিপুর গ্রামের আব্দুল ওয়াহাব, শরীফপুর গ্রামের বজলু মিয়া, আটগাঁও গ্রামের লবটন মিয়া জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেন। তাদের আ্েদনে প্রশাসন কর্ণপাত না করায় ২৫ জানুয়ারি একই দাবিতে স্যবাদ সম্মেলন করে হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন, ২৯ জানুয়ারি শাল্লার কৃষকদের নিয়ে দাবি আদায়ে মানববন্ধন করা হয় সুনামগঞ্জ আলফাত উদ্দিন স্কয়ারে, দাবি আদায় না হওয়ায় হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন শাল্লা উপজেলা কমিটর উদ্যোগে ৯ ফেব্রুয়ারি একই দাবিতে শাল্লা শহীদ মিনারে মানববন্ধন করা হয়। এতো আন্দোলনের ফলে বুধবার দুদকের মামলার আসামীদের পিআইসি থেকে বহিষ্কার করা হয়।
এ ব্যাপারে হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু বলেন, দিরাই শাল্লা পিআইসি থেকে দুদকের মামলার আসামীদের বাদ দেওয়া আমাদের প্রথম বিজয়৷ এর জন্য দু উপজেলার নির্বাহী অফিসারকে ধন্যবাদ জানাই, কৃষকদের পক্ষে আমাদের আন্দোলন চলবেই। ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাঁধের কাজ শেষ না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।