জননেতা এম ইলিয়াস আলীর সন্ধান কামনায় জেলা বিএনপির দোয়া মাহফিল

0
1
বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলী নিখোঁজের ৭ বছর অতিবাহিত হওয়ায় তার সন্ধান কামনায় জেলা বিএনপির উদ্যোগে হযরত শাহজালাল (রহ.) জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সফল সভাপতি ও সাবেক সফল সংসদ সদস্য জননতো এম ইলিয়াস আলীর সন্ধান কামনায় দোয়া মাহফিল করেছে সিলেট জেলা বিএনপি। বুধবার বাদ আসর নগরীর দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার সংলগ্ন জামে মসজিদে উক্ত দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। জননেতা এম ইলিয়াস আলী গুম হওয়ার ৭ বছর অতিবাহিত হওয়ায় তাঁর সন্ধান কামনায় তিন দিনের কর্মসুচী ঘোষনা করে সিলেট জেলা বিএনপি। ঘোষিত কর্মসুচীর অংশ হিসেবে উক্ত দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। কর্মসুচীর মধ্যে রয়েছে ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি ও ২৯ এপ্রিল সোমবার আলোচনা সভা।
মাহফিলে সিলেটের কোটি জনতার হৃদয়ের স্পন্দন জননেতা এম ইলিয়াস আলী, ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ দিনার, জুনেদ আহমদ ও ইলিয়াস আলীর গাড়ি চালক আনসার আলী সহ গুমকৃত সকল নেতাকর্মীর সন্ধান কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এছাড়াও মাহফিলে মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান, তাহার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মাগফেরাত কামনা, ষড়যন্ত্রমূলক মামলার ফরমায়েসী রায়ে কারান্তরীণ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপির চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুস্থতা, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা এবং দেশ-জাতির মঙ্গল কামনা করে মোনাজাত করা হয়। মাহফিলে জেলা বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল কাহির চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত চৌধুরী সাদেক, জেলা সহ-সভাপতি এডভোকেট আশিক উদ্দিন, কামরুল হুদা জায়গীরদার, একেএম তারেক কালাম, শাহজামাল নুরুল হুদা, জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, সৈয়দ মোতাহির আলী, নুর মিয়া, জেলা উপদেষ্ঠা শহীদ আহমদ চেয়ারম্যান, জেলা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, মঈনুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামাল, আবুল কাশেম ও শামীম আহমদ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন, জেলা বিএনপির দফতর সম্পাদক এডভোকেট মোঃ ফখরুল হক, প্রচার সম্পাদক নিজাম উদ্দিন জায়গীরদার, তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক মতিউল বারী চৌধুরী খুর্শেদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন, মহানগর আপ্যায়ন সম্পাদক আফজাল উদ্দিন, ওসমানীনগর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক তাজ মোঃ ফখর উদ্দিন, জেলা ধর্ম সম্পাদক আল মামুন খান, বিএনপি নেতা আব্দুল মান্নান পুতুল, আলী আকবর, এম.এ মালেক, দিদার ইবনে তাহের লস্কর, বুরহান উদ্দিন, আব্দুল মালেক, আব্দুল লতিফ খান, আব্দুল ওয়াহিদ সুহেল, মাওলানা সাদিকুর রহমান, আব্দুল ওয়াহিদ, ফয়েজ আহমদ, চৌধুরী মোহাম্মদ সুহেল, হাসান মঈনুদ্দিন, আব্বাস উদ্দিন চেয়ারম্যান, নুরুল হক, হাফিজ কবির, নুরুল ইসলাম, আব্দুল খালিক, নুরুল মুত্তাকিম বাদশা, এমদাদুল হক স্বপন, ফখরুল ইসলাম রুমেল, ওসমান গনি, আব্দুল্লাহ আল শফি শাহেদ, মাসুক আহমদ, কল্লোল জ্যোতি বিশ্বাস জয়, মকসুদুল করিম নোহেল, মনোয়ার হোসেন, শাহেদ আহমদ হাবিবুর রহমান, আব্দুল মুকিত, ফাহিম আহমদ, জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি আব্দুল হাসিব ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহেল ইবনে রাজা, ছাত্রদল নেতা মাসুম পারভেজ, আলী আকবর রাজন, দুলাল রেজা, তানিমুল ইসলাম, তাজুল ইসলাম সাজু, সুয়েদুর রহমান সুহেদ, জয়নাল আবেদীন রাহেল, জামাল আহমদ, রাশেদ চৌধুরী, হোসাইন আহমদ, সৈয়দ সাইদুর রহমান, আঙ্গুর আহমদ, রেজা চৌধুরী ও ফাহিম আহমদ খান প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি