রোহিতের সেঞ্চুরিও বাঁচাতে পারল না ভারতকে

0
14
Rohit Sharma of India batts during the first One Day International match between Australia and India at the SCG in Sydney, Australia, 12 January 2019. One Day International match - Australia vs. India, Sydney - 12 Jan 2019. STEVE CHRISTO/EPA-EFE/REX/Shutterstock. Editorial use only. NO ARCHIVING, , IMAGES TO BE USED FOR NEWS REPORTING PURPOSES ONLY, NO COMMERCIAL USE WHATSOEVER, NO USE IN BOOKS WITHOUT PRIOR WRITTEN CONSENT FROM AAP. 10054838r

ক্রীড়াঙ্গন রিপোর্ট :
দারুণ একটা ইনিংস খেললেন রোহিত শর্মা। তবু আফসোস! তার ১৩৩ রানের ইনিংসটিও যে জয় এনে দিতে পারেনি ভারতকে। শনিবার সিডনিতে বিরাট কোহলির দলকে ৩৪ রানে হারিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে অজিরা।
টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ২৮৮ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। জবাবে ৯ উইকেটে ২৫৪ রানে থামে ভারত।
২৮৯ রান তাড়া করতে নেমে ইনিংসের প্রথম ওভারেই আউট হন শিখর ধাওয়ান। তাকে এলবির ফাঁদে ফেলে জ্যাসন বেহেরেনডর্ফ পান ওয়ানডের অভিষেক উইকেটের স্বাদ। চতুর্থ ওভারে বল করতে এসে ঝাই রিচার্ডসন হানেন জোড়া আঘাত। প্রথমে অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে (৩) মার্কাস স্টোয়নিসের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান। এরপর তুলে নেন আম্বাতি রাইডুকে। ৪ রানেই ৩ উইকেট হারায় ভারত।
এমন পরিস্থিতিতে ক্রিজে আসেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। নেমেই সিঙ্গেল নিয়ে ভারতের পঞ্চম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডের ‘দশ হাজারি’ ক্লাবে পা রাখেন ভারতীয় উইকেটরক্ষক। রেকর্ড গড়ার দিনে দারুণ ধৈর্যের পরীক্ষা দিয়েছেন ধোনি। প্রথম ২৮ বল মোকাবেলায় মাত্র ৬ রান আসে তার ব্যাট থেকে। রোহিতও খেলেছেন রয়ে-সয়ে। এতটাই যে ১৪তম ওভারে প্রথম ছক্কা ও প্রথম চারের দেখা মেলে ইনিংসের ২১তম ওভারে। তবে সেট হয়ে যাওয়ার পর একটু আগ্রাসী হয়ে ওঠেন রোহিত-ধোনি। দুজনেই তুলে নেন ফিফটি। শেষপর্যন্ত ধোনিকে ফিরিয়ে ১৩৭ রানের জুটি ভাঙেন বেহেরেনডর্ফ। ৯৬ বলে ৫১ রান করেন ভারতীয় উইকেটরক্ষক। ধোনির পর উইকেট এসে সুবিধা করে ওঠতে পারেননি দিনেশ কার্তিক। ২১ বলে ১২ রান করে আউট হন। তবে রোহিত ছিলেন অটল। ২২তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি তুলে নেন এই ডানহাতি। সেঞ্চুরির পর ব্যাট চালাতে থাকেন সপাটে। কিন্তু একা একা আর কতক্ষণ?
রবীন্দ্র জাদেজা (৮) আউট হওয়ার পর শেষ ৫ ওভারে ভারতের প্রয়োজন ছিল ৭৫ রান। ৪৬তম ওভারের চতুর্থ বলে স্টোয়নিসের ফুলটসটা মিড অফ দিয়ে সীমানার বাইরে পাঠান। মারতে গিয়েছিলেন পরের ডেলিভারিটাও। কিন্তু টাইমিং গড়মিলে বল ওঠে যায় উপরে। মিডউইকেটে থাকা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল সেটি তালুবন্দি করেন। ফেরার আগে ১২৯ বলে দশ চার আর ছয় ছক্কায় ১৩৩ রান করেন রোহিত।
রোহিত আউট হওয়ার পর জয় অস্ট্রেলিয়ার হাতের মুঠোয় চলে আসে। পরের ব্যাটসম্যানরা কেবল ভারতের পরাজয়ের ব্যবধানটাই কমিয়েছেন যা।
অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ২৬ রানে ৪টি উইকেট নিয়েছেন রিচার্ডসন। বেহেরেনডর্ফ আর স্টোয়নিস নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। ম্যাচসেরা হয়েছেন রিচার্ডসন।
এর আগে উমান খাজা (৫৯), শন মার্শ (৫৪) আর পিটার হ্যান্ডসকম্বের (৭৩) ফিফটি আর স্টোয়নিসের অপরাজিত ৪৭ রানে ভর করে ২৮৮ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া। ভারতের পক্ষে দুটি করে উইকেট নেন ভুবনেশ্বর কুমার আর কুলদীপ যাদব।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
অস্ট্রেলিয়া: ৫০ ওভারে ২৮৮/৫ (হ্যান্ডসকম্ব ৭৩, খাজা ৫৯, মার্শ ৫৪, স্টোয়নিস ৪৭*, ম্যাক্সওয়েল ১১*; কুলদীপ ২/৫৪)
ভারত: ৫০ ওভারে / (ধোনি ৫১, রোহিত ১৩৩, ভুননেশ্বর ২৯*; রিচার্ডসন ৪/২৬, বেহেরেনডর্ফ ২/৩৯, স্টোয়নিস ২/৬৬)
ফল: অস্ট্রেলিয়া ৩৪ রান জয়ী।