রংপুর-ঢাকা শীর্ষে ওঠার লড়াই আজ ॥ অপর ম্যাচে কুমিল্লা-রাজশাহী মুখোমুখি

0
110

স্পোর্টস ডেস্ক :
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল টি২০) কোন ম্যাচটি দেখতে সবাই মুখিয়ে আছেন? স্বাভাবিকভাবেই জবাব আসবে, রংপুর রাইডার্স ও ঢাকা ডায়নামাইটসের মধ্যকার ম্যাচ দেখতে সবারই অপেক্ষা আছে। সেই অপেক্ষা আজ ফুরাচ্ছে। আজ মাশরাফি বিন মর্তুজার রংপুর রাইডার্স ও সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটসের মধ্যে লড়াই হবে। দুপুর ২টায় মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে। যে দল জিতবে, তারাই পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠে যাবে। একই দিন, একই স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় স্টিভেন স্মিথের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও মেহেদী হাসান মিরাজের রাজশাহী কিংসও মুখোমুখি হবে। একদিনে দুটি করে ম্যাচই হচ্ছে। দুই দিন ম্যাচের পর একদিন বিরতি দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিরতি শেষে আজ আবার লীগের ষষ্ঠ আসরের ম্যাচ মাঠে গড়াবে। এবার টানা তিনদিন দুটি করে ম্যাচ হওয়ার পর একদিন বিরতি দিয়ে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে খেলা। মিরপুরে প্রথম পর্বের শেষের শুরু হচ্ছে আজ। শুরুতেই আকর্ষণীয় ম্যাচ থাকছে।
দুই চ্যাম্পিয়ন দলের মধ্যে লড়াই হবে। বিপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন দল রংপুর। ঢাকা ডায়নামাইটস ২০১৬ সালের বিপিএলের, চতুর্থ আসরের চ্যাম্পিয়ন দল। গত আসরের রানার্সআপ দলও ঢাকা। রংপুরের কাছেই শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে হেরে রানার্সআপ হয়েছে ঢাকা। একটা প্রতিশোধ ভাবও থাকবে।
বাংলাদেশ দলে এখন দুই অধিনায়ক। একজন টেস্ট ও টি২০ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। আরেকজন ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। দুই অধিনায়কের মধ্যেও আসলে লড়াই দেখার মিলবে। সবচেয়ে বড় বিষয়, জাতীয় দলের টি২০ অধিনায়ক যেহেতু সাকিব, তাকে হারানোর স্বাদ মাশরাফি নিতে চাইবে।
এর বাইরে আসলে মূল যে বিষয়টি সবার নজরে আসছে, এবার বিপিএলে দুই দল শক্ত দল গড়েছে। দুই দলই শিরোপা প্রত্যাশী। দুই দল শেষপর্যন্ত কেমন করবে, এর একটি পূর্বানুমান এই ম্যাচটিতেও মিলবে। সবার নজর তাই এ দুই দলের লড়াইয়ের দিকেই আছে।
শুধু তাই নয়, দুই দলেই তারকা ক্রিকেটারে ভরপুর। এ দুই দলের ম্যাচ দেখতে আসলে একসঙ্গে সব তারকাকেই দেখার প্রাণ জুড়াবে। রংপুরে যেমন মাশরাফির সঙ্গে মেহেদী মারুফ, মোহাম্মদ মিঠুন, ফরহাদ রেজা, সোহাগ গাজী, নাজমুল ইসলাম অপু, শফিউল ইসলামের খেলা দেখা যাবে। তেমনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইল, দক্ষিণ আফ্রিকার রাইলি রুশো, ইংল্যান্ডের রবি বোপারা, বেনি হাওয়েলদেরও দেখার মিলবে। এবি ডি ভিলিয়ার্স সিলেট পর্বে যোগ দেবেন। তাই দুই দলের মধ্যকার পরের ম্যাচে ভিলিয়ার্সকেও দেখা যাবে।
রংপুর যেখানে তারকাবহুল, সেখানে ঢাকাও কম নয়। সাকিবের সঙ্গে রনি তালুকদার, শুভাগত হোম, নুরুল হাসান সোহান, মিজানুর রহমান, মোহর শেখ ও রুবেল হোসেনের নৈপুণ্য দেখার প্রত্যাশা আছে। সেই সঙ্গে এ বিপিএলে ব্যাটিং ‘বিস্ময়’ হয়ে ওঠা আফগানিস্তানের ওপেনার হযরতুল্লাহ জাজাইকেতো এখন সবাই সামনে থেকে দেখতে উদগ্রীব। ঢাকার খেলা দুই ম্যাচেই নায়ক তিনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সুনীল নারাইন, কাইরন পোলার্ড ও আন্দ্রে রাসেলওতো মন ভরে দিচ্ছেন। দুই দলেই সেরা তারকা ক্রিকেটাররা আছেন। কিন্তু শেষপর্যন্ত কোন দলের ক্রিকেটাররা নিজেদের মেলে ধরতে পারবেন, সেই দিকেই সবার নজর থাকছে। মাশরাফির জন্য রংপুরের দিকে যতই দর্শকরা ঝুঁকে থাকুক, খেলা মিরপুরে; তাই ঢাকার সমর্থকরাই যে গলা ফাঁটাবেন বেশি, তা ধরেই নেয়া যায়।
পয়েন্ট তালিকায় দুই দলের সমান পয়েন্ট। দুই ম্যাচ জয়ে ৪ পয়েন্ট করে পেয়েছে দুই দল। তবে রংপুর তিন ম্যাচ খেলে একটিতে হেরেছেও। ঢাকা দুই ম্যাচের দুটিতেই জিতেছে। তাতে পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষস্থানেও আছে ঢাকা। যে দল জিতবে, তারাই শীর্ষে উঠবে। পয়েন্ট তালিকায় সবার উপরে থাকার প্রতিযোগিতাও যে দুই দলের ম্যাচে থাকবে।
কুমিল্লা ও রাজশাহীর ম্যাচেও আকর্ষণীয় ক্রিকেটার আছেন। কুমিল্লায় তো সেরা ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথই আছেন। যদিও নিজেকে মেলে ধরতে পারছেন না। তবে যেদিন খেলবেন, সেদিন প্রতিপক্ষকে কাঁপিয়ে ছাড়বেন নিশ্চয়ই। স্মিথের সঙ্গে দেশের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল রয়েছেন। কুমিল্লার তো ব্যাটিং লাইনআপ অনেক শক্তিশালী। এভিন লুইস, শোয়েব মালিক, শহীদ আফ্রিদির মতো তারকা ক্রিকেটাররাও রয়েছেন। সেই তুলনায় রাজশাহীতে দেশী ক্রিকেটারদের মধ্যে মুস্তাফিজুর রহমান, সৌম্য সরকার, মেহেদী হাসান মিরাজেই মন ভরাতে হবে। বিদেশীদের মধ্যে মোহাম্মদ হাফিজই বড় নাম। ২০১৫ সালের, তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন দল কুমিল্লা। এবারও তারকাবহুল দল বানিয়েছে। কিন্তু দুই ম্যাচের একটিতে জিততে পেরেছে। এখন দুই ম্যাচ খেলে একম্যাচ জেতা রাজশাহীকে আটকাতে পারে কিনা কুমিল্লা, সেদিকেই নজর থাকবে। তবে ম্যাচ আজ দুটি থাকলেও সবার দৃষ্টি আসলে রংপুর-ঢাকার ম্যাচের দিকেই থাকছে।