মার্কিন নাগরিক খুন

0
47

ভারতের আন্দামান নিকোবর দ্বীপে এক মার্কিন নাগরিক খুন হয়েছেন। অজ্ঞাত পরিচয় আততায়ীদের হাতে খুন হয়েছেন তিনি। তবে এখনও পর্যন্ত উদ্ধার হয়নি তার দেহ।বহির্বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন নর্থ সেন্টিনেল দ্বীপের আদিবাসীদের আক্রমণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পুলিশের তরফে খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে সাত সন্দেহভাজনকেও।এরা সকলেই পেশায় মৎস্যজীবী। ওই তরুণ পর্যটককে নর্থ সেন্টিনেল দ্বীপে নিয়ে গিয়েছিল। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।
নিহত ওই মার্কিন নাগরিকের নাম জন অ্যালেন চাও। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, গির্জার যাজক ছিলেন তিনি। ঘন ঘন আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে যাতায়াত ছিল। সেন্টিনেল প্রজাতির মানুষের সঙ্গে যেচে আলাপ করতেন। চেষ্টা করতেন তাদের খ্রিষ্টান ধর্মে দীক্ষিত করতে।
আন্দামান শিখা সংবাদপত্রের দাবি, অতীতে মোট পাঁচবার আন্দামান ঘুরে গিয়েছিলেন জন। দেখা করতে চেয়েছিলেন আদিবাসী নেতাদের সঙ্গে। যাতে তাদের কাছেও খ্রিষ্টান ধর্মের বার্তা পৌঁছে দিতে পারেন। মৃত্যুর আগে গত পাঁচদিনে একাধিকবার নর্থ সেন্টিনেল আইল্যান্ডে গিয়েছিলেন। তা-ও আবার স্থানীয় মৎস্যজীবীদের সাহায্যে। ওই মৎস্যজীবীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জেরায় পুলিশকে তারা জানিয়েছে, নর্থ সেন্টিনেল আইল্যান্ডে পৌঁছাতেই অ্যালেনের ওপর তির ধনুক নিয়ে হামলা করে আদিবাসী উপজাতিরা। বালির ওপর দিয়ে টানতে টানতে সমুদ্র সৈকতের দিকে নিয়ে যায়। সেই শেষবার তাকে দেখেছিল তারা।
অ্যালেনের দেহের খোঁজে তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে। নামানো হয়েছে হেলিকপ্টারও। তবে নর্থ সেন্টিনেল দ্বীপে হেলিকপ্টার নামানোর সাহস পাচ্ছে না স্থানীয় প্রশাসন। কারণ তাতে আদিবাসী উপজাতিরা রণমূর্তি ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা।
আনন্দবাজার জানায়, ভারত মহাসাগরের বুকে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে বাস সেন্টিনেলিজদের। ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী তাদের জনসংখ্যা ৫০-এর মধ্যে। তবে বহির্বিশ্ব থেকে একেবারেই বিচ্ছিন্ন। ইচ্ছাকৃতভাবে নিজেদের সরিয়ে রেখেছে তারা। নিজেদের এলাকায় বাইরে কারও প্রবেশ একেবারেই পছন্দ নয় তাদের। তা রুখতে নৃশংস পদক্ষেপ করতেও পিছপা হয় না। কোনও মুদ্রা ব্যবহার করে না সেন্টিনেলিজরা। তাদের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারে না সরকারও। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন বা তাদের এলাকায় প্রবেশক বেআইনি বলে গণ্য হয়। ভিডিও ক্যামেরায় তাদের গতিবিধি রেকর্ড করাও নিষিদ্ধ।
২০১৭ সালে সরকারের তরফে সাফ জানানো হয়, সেন্টিনেলিজরা আদিম অধিবাসী। তাদের নিয়ে কোনও রকম ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করা যাবে না।